আবারো প্রশ্ন ফাঁসের কান্ড ঘটেছে


আবারো প্রশ্ন ফাঁসের কান্ড ঘটেছে রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত নার্সিং কলেজগুলোর বিএসসি কোর্সের (পোস্ট বেসিক) প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়ে গেছে। এ জন্য পরীক্ষা স্থগিত করে দেয়া হয়েছে। রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের ২১টি কলেজের পরীক্ষার্থীরা রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) থেকে ১৮টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা দিতে বসতেন। তাদের সব বিষয়ের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) পরীক্ষা স্থগিত করা হয়।

প্রশ্ন ফাঁস সংক্রান্ত প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় বৃহস্পতিবার তাদের সাময়িক বরখাস্ত করেছে মন্ত্রণালয়। একইসঙ্গে ঘটনা তদন্ত করতে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রামেবির উপাচার্য অধ্যাপক এ. জেড. এম মোস্তাক হোসেন বলেন, ‘প্রশ্ন কীভাবে ফাঁস হয়েছে তা জানতে মন্ত্রণালয় থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিতে রামেবির প্রতিনিধিও রাখা হয়েছে। বিস্তারিত পরে বলা যাবে। আপাতত প্রশ্নপত্র তৈরির সঙ্গে সম্পৃক্ত তিন শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তাদের ব্যাপারে তদন্ত ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরীক্ষা স্থগিত রাখতে বলা হয়েছে। পরীক্ষা পরে হবে।’

বগুড়া সরকারি নার্সিং কলেজের অধ্যক্ষ আরশে আরা বেগম বলেন, ‘আমাদের আরও কয়েকজন শিক্ষক এই প্রশ্নপত্র করার সময় ছিলেন। তাদের মধ্যে তিন জনের ব্যাপারে মন্ত্রণালয় অভিযোগ পেয়েছে যে তারা প্রশ্ন ফাঁস করেছেন। সেই জন্য গত বৃহস্পতিবার তাদের সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ঘটনায় গঠন করা তদন্ত কমিটির চিঠিতে বিষয়টি আমি জানতে পেরেছি।’

এই কারণে শিক্ষার্থীদের মধ্যে একটা ভীতি তৈরি হয়েছে। এবং তাদের পড়াশোনার ক্ষতি ও হওয়ার পাশাপাশি তাদের মনোযোগ বিঘ্ন হতে পারে।

Leave a Comment