নবম শ্রেণীর পাঠ্যপুস্তকে পড়ানো হচ্ছে ডেটিং অ্যান্ড রিলেশনশিপ

সম্প্রীতি আমাদের দেশে সপ্তম শ্রেণির ইতিহাস ও সামাজিক বিজ্ঞান বইয়ে ‘মানুষে মানুষে সাদৃশ্য ও ভিন্নতা’ নামক একটি অধ্যায়ে একটি গল্প নিয়ে গত মাসে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা হয়েছে এ ইস্যুতে আন্দোলন পর্যন্ত হয়েছে। সারাদেশ জুড়ে বয়কটের ডাক উঠেছে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটি র বিরুদ্ধে। তৃতীয় লিঙ্গের একজন মানুষকে নিয়ে লেখা ‘শরীফার গল্প’ নিয়ে ওই পরিস্থিতি তৈরি হয়। যা নিয়ে আলোচনা সমালোচনা করছে প্রতিটি মানুষ।


এদিকে আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে নবম শ্রেণির সিলেবাসে এমন বিষয় যোগ করেছে, যাতে রীতিমতো অবাক সারা দেশ এবং নেটিজেনরা। সেখানে ‘ডেটিং’, ‘সম্পর্কের জটিলতা’ ইত্যাদি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। এসব নিয়ে লেখা অংশের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিনিয়তই ঘুরছে এবং ভাইরাল। এ পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন অনেকেই। পুরো অধ্যায়টি পড়ার ইচ্ছে প্রকাশও করছেন কেউ কেউ। অনেকে নিজেদের স্কুল জীবনের অভিজ্ঞতার কথাও বলছেন। অনেক বাবা-মায়েরাই এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন।

সামগ্রিকভাবে, ভারতীয় শিক্ষা ব্যবস্থায় এই পদক্ষেপের জন্য ইতিবাচক সাড়া পড়েছে সমাজমাধ্যমে। আগামী দিনে এমন অনেক বিষয় সিলেবাসে যোগ করার অনুরোধও জানানো হচ্ছে। মনে করা হচ্ছে, স্কুল জীবনেই যদি সম্পর্কের এই সব জটিলতার ব্যাপারে শিক্ষার্থীরা জ্ঞান লাভ করে, তবে অনেক অপরাধ, আত্মহত্যার মতো ঘটনা আটকানো সম্ভব হবে। এই বিষয় নিয়ে অনেকেই ইতিবাচক মন্তব্য পোষণ করছেন। আবার অনেকে সমালোচনাও করছেন।
এবার শিক্ষা মূলক বইতে থাকবে ডেটিং এবং সম্পর্ক নিয়ে অধ্যায়। আর সেটা পড়তে হবে স্কুল পড়ুয়াদের। সিবিএসই মাধ্যমে এবার নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়তে হবে ডেটিং এবং সম্পর্ক নিয়ে অধ্যায়। আর এই অধ্যায়গুলিতে থাকবে বিশেষ বন্ধু, ক্রাশ মত বিষয় নিয়ে নানান অধ্যায়। এক্স-এ এক নেটিজেন এই অধ্যায়ের একটি ছবি শেয়ার করেছেন।


তাই অনেকেই মনে করেন, স্কুল জীবনেই যদি সম্পর্কের এই সব জটিলতার ব্যাপারে ধারণা দেওয়া যায় তাহলে তা তাদের টক্সিক প্রেমের সম্পর্ক থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করবে। এতে শিক্ষার্থীদের অনেক উপকার হবে বলে অনেকেই আশাবাদী। তারা ভবিষ্যৎ প্রজন্ম সম্পর্কে অবগত হতে পারবে এবং সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে।

নবম শ্রেণীর পাঠ্যপুস্তকে পড়ানো হচ্ছে ডেটিং অ্যান্ড রিলেশনশিপ

Leave a Comment