বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ 

Table of Contents

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্স সমূহ 

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের একটি প্রমুখ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়। এটি বাংলাদেশের মাধ্যমিক এবং উচ্চশিক্ষার জন্য ওপেন ডিস্ট্যান্স লার্নিং এবং কনটিনিউয়িং এডুকেশনের সুযোগ প্রদান করে।এটি সংস্থান বিশ্ববিদ্যালয় কমিশনের (UGC) অধীনে অবস্থিত একটি স্বাধীন প্রতিষ্ঠান। 

অনেকেই এমন আছে যারা উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শেষ করে আর্থিক সমস্যা কিংবা ব্যক্তিগত সমস্যার জন্য ওই সময়ে আর পড়ালেখা করতে পারেনি। কিন্তু এখন পড়ালেখা করতে চাচ্ছেন সেই ক্ষেত্রে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় আপনার জন্য একটি ভালো মাধ্যম হতে পারে। বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স,মাস্টার্স ও ডিপ্লোমায় বিভিন্ন কোর্স রয়েছে।বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে নিম্নলিখিত কোর্স সমূহ অফার করে।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচিতি

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৯২ সালের ২০ অক্টোবর প্রতিষ্ঠিত হয়। জাতিসংঘ কর্তৃক প্রণীত নিরক্ষরতা দূরীকরণ আইনের আওতায় এই বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হয়। বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় মূলত একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় তবে এখানে অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো নিয়ম-কানুন নয়। এখানে পড়ালেখার কোন বয়স সীমা নেই।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় যে সকল বিষয় ডিগ্রী নেওয়া যায়

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে  ৩ ধরনের ডিগ্রী নেওয়া যায়।

১) ৩ বছর মেয়াদী ব্যাচেলর অফ সোশ্যাল সাইন্স ডিগ্রি ও ব্যাচেলর অফ আর্টস(BA)   ।

২) ৪ বছর মেয়াদী অনার্স ডিগ্রী।

৩)৪ বছর মেয়াদী আইন বিভাগ।

বাংলাদেশে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় কোর্সগুলি 

১) শিক্ষা ও মানবিক অনুষদ

ব্যাচেলর অফ এডুকেশন (B.Ed) কোর্সগুলি: শিক্ষাগত মনোবিজ্ঞান, শিক্ষার সমাজবিজ্ঞান, পাঠ্যক্রম এবং নির্দেশনা, শিক্ষাগত পরিকল্পনা এবং ব্যবস্থাপনা, শিক্ষায় মূল্যায়ন ইত্যাদি।

শিক্ষার মাস্টার (M.Ed) কোর্স: শিক্ষাগত গবেষণা, শিক্ষাগত প্রশাসন ও তত্ত্বাবধান, উচ্চ শিক্ষা, দূরশিক্ষা, বিশেষ শিক্ষা ইত্যাদি।

ব্যাচেলর অফ আর্টস (বিএ) কোর্স: ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য, বাংলা ভাষা ও সাহিত্য, ইসলামিক স্টাডিজ, দর্শন, ইতিহাস ইত্যাদি।

মাস্টার অব আর্টস (এমএ) কোর্স: ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য, বাংলা ভাষা ও সাহিত্য, ইসলামিক স্টাডিজ, দর্শন, ইতিহাস ইত্যাদি।

২)সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ

ব্যাচেলর অফ সোশ্যাল সায়েন্স (বিএসএস) কোর্স: অর্থনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান, জনপ্রশাসন, নৃবিজ্ঞান, নারী ও জেন্ডার স্টাডিজ ইত্যাদি।

 সামাজিক বিজ্ঞানের মাস্টার্স (এমএসএস) কোর্স: অর্থনীতি, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান, পাবলিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন, নৃবিজ্ঞান, নারী ও জেন্ডার স্টাডিজ ইত্যাদি।

 ৩)বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ

 ব্যাচেলর অফ বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (বিবিএ) কোর্সগুলি: অ্যাকাউন্টিং, ব্যবসায়িক যোগাযোগ, ব্যবসার গণিত, ব্যবসার পরিসংখ্যান, ব্যবসায়িক নীতিশাস্ত্র, বিপণন ব্যবস্থাপনা, আর্থিক ব্যবস্থাপনা ইত্যাদির নীতি।

 মাস্টার অফ বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এমবিএ) কোর্স: অর্গানাইজেশনাল বিহেভিয়ার, ফাইন্যান্সিয়াল অ্যান্ড ম্যানেজারিয়াল অ্যাকাউন্টিং, হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট, মার্কেটিং ম্যানেজমেন্ট, অপারেশনস ম্যানেজমেন্ট, ফাইন্যান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি।

৪)বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদ

বিজ্ঞান ব্যাচেলর (B.Sc) কোর্স: গণিত, পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, জীববিদ্যা, পরিবেশ বিজ্ঞান, কম্পিউটার বিজ্ঞান, ইত্যাদি।

 মাস্টার অফ সায়েন্স : পরিবেশ বিজ্ঞান, পদার্থবিদ্যা, রসায়ন,কম্পিউটার বিজ্ঞান,  গণিত, জীববিজ্ঞান, ইত্যাদি।

৫)কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন অনুষদ

ব্যাচেলর অফ এগ্রিকালচার (BAg) কোর্স: মৃত্তিকা বিজ্ঞান, উদ্ভিদ রোগবিদ্যা, উদ্যানবিদ্যা, কৃষি অর্থনীতি এবং সম্প্রসারণ, প্রাণী বিজ্ঞান এবং পুষ্টি ইত্যাদি।

৬)স্বাস্থ্য বিজ্ঞান অনুষদ

ব্যাচেলর অফ সায়েন্স ইন নার্সিং (বিএসএন) কোর্স: অ্যানাটমি এবং ফিজিওলজি, মেডিকেল সার্জিক্যাল নার্সিং, প্রসূতি ও গাইনোকোলজিক্যাল নার্সিং, চাইল্ড হেলথ নার্সিং, কমিউনিটি হেলথ নার্সিং, ইত্যাদি।

পাবলিক হেলথ (এমপিএইচ) কোর্স: হেলথ এডুকেশন, হেলথ প্রমোশন,এনভায়রনমেন্টাল হেলথ,  এপিডেমিওলজি, বায়োস্ট্যাটিস্টিকস, হেলথ পলিসি অ্যান্ড প্ল্যানিং ইত্যাদি।

 বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে  ডিপ্লোমা কোর্স সমূহ

১) ডিপ্লোমা ইন কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং:

  • অ্যালগরিদম এবং ডেটা স্ট্রাকচার
  • অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং
  • কম্পিউটার নেটওয়ার্ক
  • ডাটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম
  • অপারেটিং সিস্টেম

 ২) ডিপ্লোমা ইন ইলেকট্রিক্যাল এবং ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং:

  •  বৈদ্যুতিক সার্কিট তত্ত্ব
  •  এনালগ ইলেকট্রনিক্স
  •  ডিজিটাল ইলেকট্রনিক্স
  •  পাওয়ার ইলেকট্রনিক্স
  •  মাইক্রোকন্ট্রোলার ভিত্তিক সিস্টেম ডিজাইন

 ৩) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপ্লোমা

  •  জরিপ
  •  নির্মাণ সামগ্রী এবং অনুশীলন
  •  গাঠনিক পর্যবেকক্ষণ
  •  কংক্রিট প্রযুক্তি
  •  পরিবহন প্রকৌশল

৪)আর্কিটেকচারে ডিপ্লোমা

  • আর্কিটেকচারাল গ্রাফিক্স
  •  স্থাপত্যের ইতিহাস
  •  বিল্ডিং উপকরণ এবং নির্মাণ
  •  স্থাপত্য নকশা
  •  ভূদৃশ্য স্থাপত্য

 ৫) ব্যবসায় প্রশাসনে ডিপ্লোমা

  • ব্যাবস্থাপনার নীতি
  • পরিচালকদের জন্য অ্যাকাউন্টিং
  • মার্কেটিং ম্যানেজমেন্ট
  •  মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা
  •  আর্থিক ব্যবস্থাপনা

৬)টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপ্লোমা

  • টেক্সটাইল কাঁচামাল এবং সুতা উত্পাদন
  •  ফ্যাব্রিক উত্পাদন প্রযুক্তি
  •  ডাইং এবং প্রিন্টিং প্রযুক্তি
  •  পোশাক উত্পাদন প্রযুক্তি
  •  টেক্সটাইল পরীক্ষা এবং মান নিয়ন্ত্রণ

৭) ডিপ্লোমা ইন ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট

  • পর্যটন শিল্পের পরিচিতি
  •  ট্রাভেল এজেন্সি এবং ট্যুর অপারেশন ম্যানেজমেন্ট
  •  হোটেল অপারেশন ম্যানেজমেন্ট
  •  খাদ্য ও পানীয় পরিষেবা ব্যবস্থাপনা
  •  ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট

৮) মৎস্য ব্যবস্থাপনায় ডিপ্লোমা

  • মিঠা পানি এবং সামুদ্রিক মৎস্য জীববিজ্ঞান
  •  অ্যাকুয়াকালচার এবং মাছ চাষ
  •  মাছ প্রক্রিয়াকরণ এবং মান নিয়ন্ত্রণ
  •  মাছের খাদ্য এবং পুষ্টি
  •  মাছের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান, মানবিক ও ভাষা স্কুল (অনুষদ) এর অধীন ৪ বছর মেয়াদি বিএ (অনার্স) ইসলামিক স্টাডিজ,বাংলা ভাষ্য ও সাহিত্য, ইতিহাস, দর্শন, এবং বিএসএস (অনার্স)। সমাজতত্ত্ব ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিষয়সমূহে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে।

তথ্য,

 ১)উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ৪ বছরে মােট ৪০টি কোর্স বা ১২০ ক্রেডিট সম্পন্ন করতে হবে ,প্রতি কোর্স=৩ ক্রেটিড । এবং বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ ৮ (আট) বছর পর্যন্ত থাকে।

২)প্রতিটি শিক্ষাবর্ষ ৬ মাস মেয়াদি ২টি সেমিস্টারে বিভক্ত। প্রতি সেমিস্টারে ৫টি কোর্স রেজিস্ট্রেশন করতে হয়। তবে শিক্ষার্থী প্রয়ােজনে প্রতি সেমিস্টারে ন্যূনতম ২টি কোর্স রেজিস্ট্রেশন করতে পারবে। এবং প্রতি সেমিস্টার শেষে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ন্যূনতম যোগ্যতা

১) মানবিক শাখাঃ ইতিহাস,বাংলা ভাষা ও সাহিত্য,  দর্শন ও ইসলামিক স্টাডিজ বিষয়ে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম ২য় বিভাগ বা জিপিএ ২.৫০ (৫ এর মানের ক্ষেত্রে) জিপিএ ২.০০ (৪ এর মানের ক্ষেত্রে) থাকতে হবে।এবং সকল শাখার শিক্ষার্থীই আবেদন করতে পারবে।

২) সামাজিক বিজ্ঞান শাখাঃ সমাজতত্ত্ব ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও  বিষয়ে ভর্তির জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বা সমমানের উভয় পরীক্ষায় ন্যূনতম ৫০% নম্বরসহ দ্বিতীয় বিভাগ বা জিপিএ ২.৭৫ (৫ এর মানে) / জিপিএ ২.২ (৪ এর মানে) থাকতে হবে। এখানেও সকল শাখার শিক্ষার্থী আবেদন করতে পারবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষার মানবন্টন

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা বহুনির্বাচনী (MCQ) প্রশ্নের ভিত্তিতে  অনুষ্ঠিত হয়।

  •  বাংলা- ২৫
  • ইংরেজি ২৫
  • সাধারণ জ্ঞানঃ বাংলাদেশ বিষয়াবলি-২৫
  • আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি-২৫
  • পাস নম্বর ৪০ এবং প্রতি অংশে ৪০% নম্বর পেতে হবে।
  • প্রতিটি বিষয়ের আসন সংখ্যা ৬০।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করার নিয়ম

১) সর্বপ্রথম https://osapsnew.bou.ac.bd/)– এই ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে। এরপর আপনি যে ভর্তি হচ্ছে চাচ্ছেন কোর্স সেখানে প্রবেশ করন।

২) এবার প্রয়োজনীয় সকল তথ্য, মাধ্যমিকপরীক্ষার রোল নাম্বার ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নাম্বার ও  বোর্ড ইত্যাদি সঠিক স্থানে পূরণ করুন। ও একটি সচল ফোন নাম্বার দিন।

৩) ব্যবহৃত ফোন নাম্বারটিতে temporary user ID ও password দিবে। 

৪)এরপর পেমেন্ট অপশনে  ৫০০/- টাকা DBBL/শিওরক্যাশ-এর মাধ্যমে প্রদান করতে হবে। ট্রানজেকশন আইডি ও মােবাইল নম্বর নির্দিষ্ট স্থানে পুরণ করে Submit বাটনে ক্লিক করলে একটি SMS ও e-Email এ payment successful মেসেজ আসবে এবং  Online আবেদন সম্পন্ন হবে।

৫)আবেদনপত্র যাচাই-বাছাইয়ের পর কেবলমাত্র নির্বাচিত শিক্ষার্থীরাই লিখিত পরীক্ষার জন্য যােগ্য বলে বিবেচিত হবেন এবং তাদের তালিকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইটে দেয়া হবে। এছাড়াও নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের  মোবাইলে SMS এর মাধ্যমে নিশ্চিত করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট

Bangladesh Open University

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পদ্ধতি

১) ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরাই পরবর্তী নিয়ম কানুন মেনে ভর্তি হতে পারবে।

২) কোর্স ফি: প্রতি কোর্স ১০৫০ টাকা।

৩) প্রতি সেমিস্টারে রেজিস্ট্রেশন ফি : ২০০ টাকা।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রী ভর্তি তথ্য

ডিগ্রিতে ভর্তি হওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় সিজিপি ২.৫০ উত্তীর্ণ হতে হবে তবেই পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে আবেদনকারীরা যেকোনো সালে মাধ্যমিক পাস করলেও পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারে। এখানে পরীক্ষার্থীদের পাশের সালের ও বয়সের কোন বাধা নেই।

বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় মাস্টার্স কোর্স ভর্তি তথ্য 

মাস্টার্স কোর্সটি বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে  ১ বছর মেয়াদী।

সাধারণত শিক্ষার্থীদের তিনটি পাবলিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে মাস্টার্স কোর্সে ভর্তি হতে পারবেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক সমমান,বিএসসি, বি এ/ বি এস এস/বিকম/ এ সকল পরীক্ষায় সর্বনিম্ন ৫০% মার্ক্স নিয়ে শিক্ষার্থীদের উত্তীর্ণ হতে হবে। সর্বনিম্ন সিজিপি  ২.৫০  থাকলেই সেই শিক্ষার্থী মাস্টার্সে ভর্তির আবেদনের যোগ্য।

মাস্টার্সে ভর্তি পরীক্ষায়র মানবন্টন

  • সর্বমোট ১০০ মার্কের  mcq পরীক্ষা হবে
  •  বাংলা ২৫
  •  ইংরেজি ২৫ 
  • বাংলাদেশ বিষয় সম্পর্কে ২৫
  •  আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ২৫
  •  পাশ নম্বর সর্বনিম্ন =৪০ মার্ক 
  • এবং প্রতিটি বিষয়ে আলাদাভাবে দশ ১০‌ মার্ক পেতে হবে।

সবশেষে 

আমাদের সবারই উচিত যেকোনো বয়সেই পড়ালেখা করা । পড়ালেখা করার নির্দিষ্ট কোন বয়স নেই।আমাদের আশেপাশে এমন অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী রয়েছে যারা অভাব অনটনের কারণে পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারেনি। কিন্তু এখন এসেছে পড়ালেখা করতে চাচ্ছে কিন্তু কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া তার পক্ষে সম্ভব নয় সে সকল  শিক্ষার্থীরাই উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় পড়ালেখা করতে পারবে। এছাড়াও এমন অনেক চাকরিজীবী বা ব্যবসায়ী অথবা গৃহিনী আছেন যাদের স্বপ্ন ছিল পড়ালেখা করে বড় কিছু করবে। কিন্তু কোন কারনে তারা পড়ালেখা করতে পারেনি তাদের স্বপ্ন পূরণ করতে পারেনি তারা চাইলে যে কোন বয়সে এসে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পড়ালেখা করে তাদের স্বপ্ন পূরণ করতে পারে।

Leave a Comment