শিক্ষা জীবন শেষ হওয়ার আগেই দেখে নিন এই পাঁচটি সিনেমা

কিছু কিছু মুভি আমরা দেখি এবং ভুলে যাই কিন্তু কিছু কিছু মুভি দেখার পর তা তো মনেই থাকে এবং বড় পরিবর্তন আমি আমাদের এ জীবনে তাই আলতু ফালতু মুভি দেখা বাদ দিয়ে আমরা ভালো মুভি দেখি যেগুলো আমাদের জীবনের পরিবর্তন আনতে সাহায্য করে।
তাই শিক্ষা জীবন শেষ হওয়ার আগেই দেখে নিন এই পাঁচটি সিনেমা:

০১.ফরেস্ট গাম(Forrest gump): মূলত এটি একটি কমেডি মুভি। তারপরেও আমরা এই মুভি থেকে অনেক কিছু শিখতে পারি এই মুভিতে আমরা এমন একটি ছেলেকে দেখতে পাই যে ছেলেটি বড় তো হয়ে গিয়েছে কিন্তু ভাবে একটি বাচ্চার মত। এটাকে দেখতে একটা বড় সমস্যা লাগলেও এই শক্তিটি হচ্ছে ছেলেটি অনেক বড় শক্তি। ছেলেটি সরল মনে একটি বাচ্চার মত তার জীবনের সকল কাজ করে সে কখনো দ্বিতীয় বার ভাবে না যে আমি কি ভুল বা আমি কি কোন ভুল করতে পারি। সে এমন কোন চিন্তা না করে সবসময় পজিটিভ ভাবে এবং সব কাজ করে। মূলত আমরা যে কোন কাজ করার আগে দশবার ভাবি এই কাজটি আমি করব কি করব না এই কাজটা কি আমার দ্বারা হবে এরকমটা ভাবি লোকে কি বলবে এসব আরো কত কথা এবং এই ভাবনারই বিপরীত হচ্ছে এই মুভিটি ফরেস্ট গাম।

০২. দ্য পারস্যুট অফ হ্যাপিনেস (The pursuit of happiness ): শিক্ষার্থীরা তোমরা যদি এই মুভিটি দেখো তাহলে কখনোই প্রশ্ন করবে না যে আমরা জীবনের সাকসেসফুল না বা কিভাবে আমাদের জীবনের সফলতা আসবে। এই মুভিটি দেখার পর এই মুভিটি ফ্যান হতে তোমরা বাধ্য। এই মুভিতে একটা ছেলে থাকে যে কাজ পায় না। বেকার বলে তার স্ত্রী তাকে ছেড়ে দেয়। তাকে বাসা থেকেও বের করে দেয়া হয় এরপর লোকটি তার ছেলেকে নিয়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরতে থাকে। এবং অনেক কষ্টের জীবন যাপন করে এত কষ্টের মধ্যেও লোকটি তার জীবন নিয়ে কোনো অভিযোগ করে না। এবং আস্তে আস্তে চাকরির জন্য প্রস্তুতি নিতে থাকে। অনেক বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে কষ্ট করে সে চাকরি যোগাড় করে। এই মুভিটির মাধ্যমে আপনি বুঝতে পারবেন ধৈর্যই সফলতার চাবিকাঠি।

০৩. হার (her): আমাদের জীবন খুবই অদ্ভুত আমরা একে আগে একে অপরের জন্য কথা বলার জন্য চিঠি আদান-প্রদান করতাম টেকনোলজি আমাদের কমিউনিকেশন এতটাই পরিবর্তন করে দিয়েছে যে আমরা কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই মানুষের সঙ্গে কথা বলতে পারি যোগাযোগ করতে পারি তথ্য আদান প্রদান করতে পারি এইরকম একটা আধুনিক সবাই আমরা কি শুধু একটা আওয়াজকে ভালোবাসতে পারি? এই ইন্টারনেটের যুগে নিজের ফেসবুক ইনস্টাগ্রামে নিজের চেহারাকে বিউটি ক্যাম বিউটিফুল ফিল্টারে পিছনে লুকিয়ে যদি তাদের চেহারা দেখতে পায় তাহলে কি আমরা তাদের ভালোবাসবো? এরকম ধরনের প্রশ্নের উত্তর আপনারা মুভিটি দেখলে জানতে পারবেন। মুভিটি আওয়াজ ভিত্তিক একটি মুভি এই মুভিটি দেখলে অনেক শিক্ষণীয় বিষয় জানতে পারবে।

০৪. ডেথ পোয়েট সোসাইটি (Death poets society ): ছবিটি হয়তো অনেক পোড়ানো কিন্তু এই ছবিটি থেকে আমরা যা শিখতে পারি শিক্ষার্থী আজও আমাদের প্রয়োজন। এই মুভিতে আমরা একজন ইংলিশ টিচারকে দেখতে পাই। এই তিশার কিভাবে একজন স্টুডেন্টের জীবন পরিবর্তন করে দেয়। কিভাবে একজন শিক্ষক তার শিক্ষার্থীদের মধ্যে পড়াশোনার আগ্রহ তৈরি করে। কিভাবে একজন স্টুডেন্টের মধ্যে তার স্বপ্ন পূরণের জন্য আগ্রহ তৈরি করেন সেটাই দেখতে পাবো এই সিনেমাটিতে। শিক্ষাকে শুধুমাত্র বইয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা উচিত নয় সে বিষয়টাও এই সিনেমার মাধ্যমে ফুটে উঠেছে। সিনেমাটি দেখলে শিক্ষার্থীরা অনেক লাভবান হবে।
০৫. গড উইল হান্টিং (good will hunting ): বন্ধুরা সব মানুষ সমান না সবার মধ্যে আলাদা আলাদা ট্যালেন্ট রয়েছে। কিন্তু বর্তমান সময়ে আমাদের মধ্যে যে ট্যালেন্ট নেই তার উপরে আমরা বেশি ফোকাস করি। ছোট ছোট সমস্যাগুলোকে আমরা অতিরিক্ত ভেবে অনেক বড় সমস্যা তৈরি করি। এই সিনেমাতে দেখানো হয়েছে একজন ছেলে যে গরিবদের উপরে খুব ট্যালেন্টেড কিন্তু সে তার চ্যানেলকে কোন মূল্য দেয় না। এবং ছোটবেলার কিছু সমস্যা তার পুরো জীবনের উভরে কিভাবে প্রভাব ফেলে সেটাই দেখানো হয়েছে। এবং আরো দেখানো হয়েছে যে জীবনে অনেক সমস্যার সমাধান করা হয়েছে খুব ইজিলি ভাবে। তো শিক্ষার্থীরা এই পাঁচটি সিনেমার মাধ্যমে তোমরা জানতে পারবে কিভাবে জীবনকে উন্নত করা যায় এ পাঁচটি সিনেমা তোমাদের জীবনকে খুবই পরিবর্তন করবে এবং অনেক কিছু জানতে পারবে তো এই পাঁচটি সিনেমা এখনই দেখে আসো ফেসবুক কিংবা ইউটিউব থেকে ধন্যবাদ।

প্রযুক্তি শিক্ষা ও দেশ বিদেশের খবর জানতে এখনই ভিজিট করুন কলেজ টু ইউনিভার্সিটি পেজ এবং ওয়েবসাইটে।

Leave a Comment