হার্ট ভালো রাখার উপায় বা হার্ট দুর্বল হলে কি করনীয়?

হার্ট ভালো রাখার উপায় বা হার্ট দুর্বল হলে কি করনীয়?

হার্ট হচ্ছে আমাদের শরীরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ। দেহের প্রতিটি প্রান্তে অক্সিজেন ও পুষ্টি সমৃদ্ধ রক্ত পৌঁছে দেয় এই অঙ্গটি। তাই সুস্থ থাকতে হলে হাটের খেয়াল আমাদের রাখতেই হবে। তো চলুন
জেনে নেয়া যাক হার্ট ভালো রাখার উপায় গুলো।

শরীরের যে অঙ্গ আপনার সারা শরীরে রক্ত সঞ্চালন করে চলেছে, সেটাই হৃৎপিণ্ড। শরীরের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এ অঙ্গের যত্ন না নিলে হতে পারে ভয়াবহ বিপর্যয়। একটু সচেতন থাকলেই কিন্তু হৃৎপিণ্ড সুস্থ-সবল রাখা যায়। এ জন্য আছে বেশ সহজ কিছু উপায়।

হার্ট ভালো রাখার উপায় গুলো হল:

১.নিয়মিত ব্যায়াম

২.খাদ্যাভ্যাস

৩.পরিমিত বিশ্রাম

৪.ওজন কমানো

৫.ধূমপান থেকে বিরত থাকা

৬.মানসিক চাপ কমানো

দৈনন্দিন জীবনে যে কয়টি অভ্যাস আপনার হৃৎপিণ্ডকে সুস্থ সবল রাখতে পাব়ে , সেগুলো হলোঃ স্বাস্থ্যসম্মত ও পরিমিত খাবার, নিয়মিত ব্যায়াম করা ।মানসিক চাপ মুক্ত থাকা । ওজন নিয়ন্ত্রণ করা আর ধূমপান থেকে নিজেকে বিরত রাখা। চলুন আরো কিছু নিয়ম জেনে আসা যাক

বেশি বেশি শাকসবজি খান:

হাটকে সুস্থ রাখতে চাইলে নিয়মিত শাকসবজিও খেতে হবে। কারণ শাকসবজিতে থাকে পর্যাপ্ত পরিমাণে এনটক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন যা হাটের রক্তনালীর সুরক্ষায় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে তাই ডায়েটে অবশ্য শাকসবজি রাখুন। এতে আপনার হৃদপিণ্ড ভালো থাকবে।

গোটা দানা শস্য সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে।

গোটা দানা শস্য হলো হার্টের বন্ধু। গবেষণায় দেখা গেছে এই ধরনের খাবার খেলে হৃদরোগ আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা অনেকটাই কমে যায়।

বেরি ফল জাতীয় খাবার খান
blackberry ব্লুবেরী স্ট্রবেরির মতো ফলে রয়েছে ভিটামিন খনিজ ও অন্ত অক্সিডেন্ট যার শরীরকে সুস্থ রাখে এবং হাতকেও নানান রকম সমস্যা থেকে রক্ষা করে। এছাড়াও খাবার তালিকায় রাখতে পারেন মাছের তেল ওয়াল নার্ট জাতীয় খাবার। কারণ ওয়ালনাটে রয়েছে ম্যাগনেসিয়ার কপার ও ম্যাগনেজ এর মত অত্যন্ত প্রয়োজনীয় কিছু খনিজ পদার্থ যা ব্লাড প্রেসার কমাতে সাহায্য করে এবং হৃদরোগ প্রতিহত করে। হৃদপিণ্ড কেউ সুস্থ রাখে।

শিক্ষা দেশ-বিদেশ ও চিকিৎসার নানান রকম তথ্য পেতে যুক্ত হন কলেজ টুনিভার্সিটির পেজে

Leave a Comment